কবি আরিফুল ইসলাম এর তৃতীয় কাব্যগ্রন্থ প্রি-অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন

ছোটগল্প

;

খেজুর গাছির গপ্পো - বিশ্বজিৎ সেন

চারিদিকে কুয়াশায় ঢাকা। বিক্রম তার বাবার সাথে বাড়ি এসেছে। বোয়ালখালী উপজেলার উত্তর ভূর্ষি গ্রামের পূর্ব প্রান্তেই তাদের বাড়ি। কাঠের দোতলা ঘর। মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদ বিভুতি রঞ্জন সেন বড় সখ করেই ঘরটা তৈরী করিয়েছিলেন জৈষ্ঠপুরার খ্যাতিমান কাঠমিস্ত্রি মদন কারিগরকে দিয়ে। বাড়ির পূর্বদিকে ধূ ধূ বিল। তারপ..

আরও পড়ুন
;

একটি আঞ্চলিক গল্প : হাক্কা- সালাহ উদ্দিন মাহমুদ

বাড়ির উত্তর ধারে এউক্কা গাঙ। গাঙের নামডা অইলো আইড়াল খা। গাঙের মইধ্যে চর পইরা এত্ত বড় গাঙডা ছোড অইয়া গেছেগা। এইপাশে উড়ারচর গেরাম। গেরামের পাশ দিয়া চিকন একটা খালের মতো। আমরা ওইডার নাম দিছি ছোড গাঙ। গাঙডা ছোট অইলেও বাইষ্যাকালে পানি আইয়া বড় গাঙের লগে মিইশ্যা যাইতো। তহন চারিদিকে থৈ থৈ পানি। টলার, ন..

আরও পড়ুন
;

সাদা-কালো গল্প -সৈয়দ মাসুদ রাজা

প্রায় তিন ঘন্টা কম্পিউটারে কাজ করছি। আর ভাল লাগছে না। মাথাটা টনটন করছে। কড়া লিকারের একটা ‘চা’ খুবই জরুরী হয়ে পড়েছে। অনেকের জরুরী কাজ অসমাপ্ত রেখেই কম্পিউটারের শাট-ডাউন বাটন চেপে বেরিয়ে পড়লাম। গিট্টুর দোকানে চায়ের শেষ চুমুকটা দেয়ার ঠিক সাথে সাথেই ছেলে শোভন এসে হাজির। ওর কথাটা শুনে মনটা ভারী হয়ে..

আরও পড়ুন
;

প্রাকৃতিক – সমরেশ মজুমদার

পঁচাত্তরে পড়তে আর তিনমাস; কিন্তু স্বপ্নেন্দুর মাথার&nb p; একটি চুলও সাদা হয়নি। দাড়ি কামাবার সময় আয়নার সামনে বসে নিজেকে লক্ষ্য করেন তিনি। দুদিন দাড়ি না কামালে (সেটা খুব কম হয়) গালে সাদা ছোপ লাগে। কিন্তু না জুলপি, না কানের ওপাশে একটি রুপোলি চুল দেখতে পান না। একদা বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হলে ঠেস দে..

আরও পড়ুন
;

পাহাড় বা কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্প - মেঘ অদিতি

ফিরে ফিরে আসা এক শীতের বারান্দা ছুঁয়ে ট্রেন চলছিল উত্তরের দিকে। স্থায়ী আবাসন প্রকল্প। চোখের জল তখনও শুকোয়নি। রাত বাড়ছিল। শীতও। ইতিহাসের পাতা থেকে উঠে আসার মত এক দুর্মর অভিমানী কিশোরী অত রাতে ঘুম ঘুম চোখে পুড়িয়ে দিচ্ছিল পূর্বাপর স্মৃতি। কোথায় ছিলাম, কেন যাচ্ছি সেই যে আরো ছোটবেলায় ট্রেনে চা..

আরও পড়ুন
;

জাত : ইমতিয়াজ সুলতান ইমরান

মেয়ের বাবা হয়ে মহাবিপদে পড়েছেন ইকরাম সাহেব। বিপদে পড়াটাই স্বাভাবিক। অষ্টাদশী শিক্ষিত রূপবতী মেয়ের বাবা। প্রতিদিন ঘটকরা এসে ঘোরঘোর করে বিভিন্ন পাত্রের ছবি আর বায়োডাটা নিয়ে। তিনি যতই বলেন, এখনই মেয়ের বিয়ের কথা ভাবছেন না। নাছোড়বান্দা ঘটকরা তার পিছু ছাড়ছে না। একটার পর একটা পান চিবিয়ে মিষ্টিমুখে..

আরও পড়ুন
;

প্রত্যাশার পেখম - সৈয়দ মাসুদ রাজা

“হয় ফেসবুক, না হয় আমি”- এ দু'টোর মধ্যে তোমাকে যে কোন একটা বেছে নিতে হবে। কথাটা সোহানার সাথে শেষবারের মত হয়েছিল শান্ত’র। এরপর আর একবারও কথা হয়নি শান্ত-সোহানার। মাঝে একবার সোহানা মোবাইলে কল দিয়েছিল, কিন্তু শান্ত রিসিভ করেনি। হঠাৎই শান্ত’র এ ধরনের সিদ্ধান্ত সোহানাকে বিন্দুমাত্রও বিচলিত করেনি। কিন্তু আ..

আরও পড়ুন
;

একটি কাগুজে পদ্মের অপমৃত্যু - রনি রেজা

মোবাইল ফোনটা বেজেই চলছে। বিরক্তিকর ব্যাপার। যখন একটু তাড়াহুড়া লাগে তখন ফোনও বেয়ারা হয়ে ওঠে। অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা সকাল ১০টায়। ইতিমধ্যে ৮টা বেজে গেছে। এখনই বের না হলে সময়মতো পৌঁছানো যাবে না। এখনও আবার শাড়ি পড়া হয়নি। একা একা শাড়ি পড়ার অভ্যেস খুব একটা নেই। সব মিলিয়ে মেজাজ খিটমিট অবস্থা। বিরক্তি স..

আরও পড়ুন
;

আমার মা মিথ্যুক ছিল - অরণ্য আপন

চার বছরের ফুটফুটে বাচ্চা তোহা, এ বয়সেই সে মাকে হারিয়েছে। ওর বাবা আরেকটা বিয়ে করে নিয়েছে। মা মরলে বাবা বিয়ে করবে, কথাটা সহজে এবং সাবলীলভাবে বলা যায়, কিন্তু বাবা মরলে মা আরেকটা বিয়ের পিঁড়িতে বসবে, কথাটা বলতে আমাদের বাধো বাধো ঠেকে, এটা আমাদের ছোটোলোকি মানসিকতা। তোহার একটা মা লাগবে, এমন কথা..

আরও পড়ুন
;

ভুল উপহার - আবুল কালাম আজাদ

জ্যোস্না রাত। বস্তিঘরের আশেপাশে লাইটপোস্ট নেই। তাই জ্যোস্নাটা স্পষ্ট। পলিথিনের ছাদের ফুটো দিয়ে আকাশের চাঁদটাকেও দেখা যায়। কছিম উদ্দিন আকাশের চাঁদ দেখতে দেখতে বউয়ের মুখে তাকায়। ভাবে, কে বেশি সুন্দর নিজেই উত্তর খুঁজে নেয়, ফুলবানু ঐ চাঁদের চেয়েও সুন্দর। কছিম উদ্দিন ফুলবানুর বুকের..

আরও পড়ুন
;

২৪৪১১৩৮ - আবুল কালাম আজাদ

..

আরও পড়ুন
;

বাংলাবাজার টু বুড়িগঙ্গা - ভোলা দেবনাথ

&nb p; চাঁদ ঘেঁষা থোপ থোপ মেঘমালা উঁকি দিচ্ছে ক্ষণে ক্ষণে। কোথাও লুকানো তারা, আবার কোথাও মিটিমিটি হাসছে তারা। হেঁটে চলেছে পাহাড়ি মুকুল, কবি এ আর খান। পেছনে পাঠক অজয় পিছিয়ে রয়েছে। পুনরায় পিছিয়ে। সঙ্গে প্রান্তিক অরণ্য। ল্যাম্পপোস্ট। সোডিয়াম লাইট। রাত গভীরে প্রবেশ করছে। যানবাহন..

আরও পড়ুন
;

দাদা-নাতীর একটি সকাল - সৈয়দ মাসুদ রাজা

&nb p; &nb p;আরে শালা, বিজয় দিবসের কতা হুনসনাই হ, তা তো হুনছিই, কিন্তু এর মাহাত্ত্ব বুজিন্যা, এটটু বুজায়া কও। খালি খ্যাক্-খ্যাক্ কইর‌্যা উঠক্যা এ ধরনের কথোপকথনে দু’জন মানুষ গ্রামের মেঠোপথ ধরে হাঁটছে। একজন লাঠিতে ভর করে, নাম- ঈমান আলী, বয়স- নব্বই ছুঁই-ছুঁই, গায়ে গেঞ্জি, পরনের লু..

আরও পড়ুন
;

অতৃপ্ত আত্মা - তোফায়েল হোসেন  

&nb p; &nb p; ক্রিংক্রিং শব্দে টেলিফোন বেজে চলছে। অন্ধকারে দেয়াল ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখে সোডিয়াম আলো জানান দিচ্ছে রাত ১৩০ মিনিট। এত রাতে কে তাকে ফোন করবে রিসিভার তুলবে কি তুলবে না ভাবতে ভাবতেই লাইনটা কেটে যায়। পাশ ফিরে ঘুমুতে যাবে এমন সময় আবারো ক্রিংক্রিং শব্দে টেলিফোনটা বেজে উঠলো, রিসিভার..

আরও পড়ুন
;

 বিরহ সফর - মুস্তফা কামাল আখতার

&nb p; একজন বয়স্ক দারোয়ান কাম কেয়ার-টেকার প্রয়োজন। পরিচিত পুরোনো দারোয়ান আকবরই সাহায্য করলো, সে খুবই বিশ্বস্ত, তার সুপারিশকৃত লোক হলে নিশ্চিন্তে কাজে রাখা যাবে টাকা দিলে বাঘের চোখ মেলে কিন্তু টাকায় বিশ্বস্ত মানুষ পাওয়া অসম্ভব, তা ভুক্তভোগী মাত্রই জানে! প্রাক্তন দারওয়ান আকবরের দেশ কিশোর..

আরও পড়ুন
;

শিখা বিহীন আলো - রতন বাঙালি

ফকির কফিলউদ্দিন। চলেন ইন্দ্রিয় অনুভূত দৃষ্টিতে। নাম কফিলউদ্দিন হলেও ফকির কফিলউদ্দিনেই সে বেশি তুষ্ট! গিয়েছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে। প্রচলিত অর্থে সামাজিক সমস্যার বাইরে সেও তো নয়; তাই আর্জি জানাতেলন। আর্জি রাষ্ট্রের কছে! তার ভাবনায় রাষ্ট্রের কাছে অর্থে মেম্বার, চেয়ারম্যান, গ্রাম্য মাতুব্বর-..

আরও পড়ুন
;

খোলা জানালা- ছানোয়ার হোসেন

ক্লান্ত দুপুর। শান্ত চারদিক। চারপাশে ধানক্ষেত সবুজের উৎসবে রৌদ্রের উল্লাস। তারই কাছে দূরের মানুষের সাধ্যমত ঘরবাড়ি। একটি বাড়ির নিকোনো উঠোন পেরিয়ে ছায়া সুনিবিড় বকুলতলা শেষ হলেই বিশাল পুকুর। তার চার পাড়ে নানা ফলফুলের বৃক্ষ বিথীতে নিপাট নিসর্গ মনকাড়ে । কাঁঠাল পাতার ছায়ায় ক্লান্ত দোয়েল যেন স্তব্ধতার ম..

আরও পড়ুন
;

গোলাপের বিবর্তন - তারিক সামিন

ছবি: তারিক সামিন আমি একটা গোলাপ ফুল গাছ। আমি জানি আপনারা সবাই আমাকে ভালবাসেন। সেজন্য আজ&nb p; আপনাদের কিছু কথা বলতে চাই। কথা গুলো নিতান্তই আমার নিজের সম্বন্ধে। আপনাদের ভাল না&nb p; মন্দ লাগবে বুঝিনে। তবুও বলছি, শুনুন, আমার লক্ষ বছরের বিবর্তনের ইতিহাস। এই পৃথিবীতে মহান স্রষ্টা আমাদ..

আরও পড়ুন
;

সায়মার সংগ্রাম- কাজী আমেনা আশরাফ

আজ সায়মার মেয়ের বিয়ে। সারা বাড়ি অতিথিদের আনাগোনায় সরগরম। সায়মাকে একাই সব দিক সামাল দিতে হচ্ছে। বাবুর্চি হিসেবে হাস্মতকে পেয়েছে বলে&nb p; কিছুটা স্বস্তি। নিজের সাধ্যমতো বিয়ের আয়োজন সায়মা নিজের বাড়িতেই করেছে। কোন কিছুর কমতি রাখেনি। মেয়ের বিয়ে নিয়ে তার অনেক দিনের স্বপ্ন। পার্লার থেকে লোক এসেছ..

আরও পড়ুন
;

সাগরলীনা - সুদেষ্ণা দাশগুপ্ত

(গল্পকার- সুদেষ্ণা দাশগুপ্ত) সন্ধ্যে ন’টা চল্লিশ। এই মুহূর্তটা থেকেই যেন সারাদিনের ক্লান্তি ও বিশ্রাম শেষে সন্ধ্যেটা পূর্ণ-যৌবনা হয়ে ওঠে, মাছের গন্ধে চারদিক ভুরভুর করছে। নানা সামুদ্রিক ভাজামাছের সম্ভার নিয়ে দাঁড়িয়ে কিছু বিক্রেতা। কাছে এলে, দেখা যাবে সেই মহিলা ভাজামাছ বিক্রেতাদের চড়া সাজ আর না..

আরও পড়ুন

সাবস্ক্রাইব করুন! মেইল দ্বারা নিউজ আপডেট পান