কবি আরিফুল ইসলাম এর তৃতীয় কাব্যগ্রন্থ প্রি-অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন
মোহাম্মদ ইকবাল এর কবিতাগুচ্ছ
$post->title
ক্যাসিনো কাহিনী

শহরের সবচেয়ে অভিজাত ক্যাসিনোটির ভিভিআইপি খদ্দের আমি
এক অনন্ত যৌবনা বৈষ্ণবীর জন্য জুয়ার টেবিলে রেখে দিয়েছিলাম পৈতৃক প্রাণ
বোদ্ধা ঝানু জুয়াড়িদের চাল ভুলের প্রতীক্ষায় নির্লিপ্ত থেকে মোক্ষম সময়ে জুয়ার টেবিলে ছুড়ে দেই ইস্কাপনের রাজা,
তাতেই বাজিমাৎ!
সবার চোখের সামনেই সে আমার শুধু আমার!
গেরুয়া বাউল হৃদয় তাঁর জন্য উতলা হলে প্রিয় মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে ডুব দেই
স্ক্রিনে ঢুকতেই সামনেই পড়ে প্রিয় যমুনা নদী,
শ্রীকৃষ্ণের গ্রাম, কদমফুলে ছাওয়া নদীর ঘাট,
মোহন বাঁশিটি সেই আগের মতোই আছে,
ওটিতে সুর তুললেই নদীর জলে স্পষ্ট হতে থাকে তাঁর অনিন্দ্য সুন্দর দেহাবয়ব
পাশাপাশি বসে কত কথা, কথার পিঠে কথা
উইন্ডচাইমের মতো ঝংকার তুলা হাসি
নূপুর কাঁকন কিংবা চুড়ির রিনিঝিনি
কখনো তার ব্যতিক্রমে বুকের ভেতরে গভীর শূন্যতাকে আরো গভীরতর করে বুকের পাঁজর ভেঙে উড়াল দেয় অবাধ্য হৃদয়
আমি হন্যে হয়ে যখন ওটাকে খুঁজি দেখি সে এসে বলে ;তোমার হৃদয় সে তো আশ্রয় নিয়েছে আমার গেরুয়া আঁচলের ওমে.......................

বৈষ্ণবী (২৮)

ঈর্ষার আগুনে পুড়ে খাক হবে কেনো তোমার ভালোবাসার বসতবাটি?
তুমিতো জানোই তোমার কৃষাণ কেমন?
তাঁর কথা;
রমণীকুল, ভীষণ মায়া প্রকট বিভ্রম
তোমাকে গেঁথে নিবেই কোনো এক অচেতন গোধূলিবেলা
অস্থির এই অসহিষ্ণুতা অহেতুক নয়
তারপরও বলি ভালোবাসা তখনই ভালোবাসা হবে,
যখন কেউ বাসবে তা অন্তহীন বিশ্বাসে
তোমার ভালোবাসার জাফরানি মৌচাকে জমতে শুরু ভাঙনের অভিমানী নীল বিষ
ঝরতে দিও না তার একটি ফোটাও!
উজাড় হবে নিকানো উঠোন
উপত্যকায় উপত্যকায় কামনার ক্রোধ কেমন ফেটে পড়ছে মৃত্যুর উৎসবে
বুকের পাঁজর ভেঙে ডুব সাঁতারে চলে এসো বৈষ্ণবী তুমি হৃদয়ের বন্দরে
আপদহীন ভালোবাসার বিশ্বাসে
গেরুয়া একতারার প্রণয়ী সুরে সরে আমরাও জমাট বাঁধি আত্মায় আত্মায়

বৈষ্ণবী মন

এ্যাই তুই কি জানিস?
যে ছেলেকে বলেছিলি ভালোবাসিস
সে তো বিপথগামী বিপজ্জনক লোক
বলেছিলি কবিতা লিখে
সে তো লিখে অন্য সব মেয়েদের নিয়েই লিখে
যাদের সাথে তার ওঠাবসা
সবার সাথেই যায়।
-দিদি, তাঁর কোন বাজে দিকটা তোমার চোখে পড়েছে ধরা?
কেনো-রে এইতো সেদিন চৌরাস্তার মোড়ে
সাই করে বেরিয়ে গেলো তার অফিসের গাড়িটা নিয়ে
খাখা রুদ্দুর বেজায় গরম তারপরও গাড়ির কাচ তুলা
পাশের সিটে ফুটফুটে এক মেয়ে।
এই ধর সাপ্তাহ খানেক আগে
দু'হাতে রাজ্যের শপিংব্যাগ দেখি শপিংমলে
সেদিনও পাশে ছিল এক অনিন্দ্য সুন্দরী।
আচ্ছা ওসব না হয় বাদ
আজ সকালে ফিরছি যখন বাড়ি
অঝোর ধারার বৃষ্টিতে ভেসে যাচ্ছে চারপাশ
খুব যত্ন করে ঢেকে রেইনকোটের তলায়
পাতালরেলে নামছে সে সাথে একটি নারী।
-দিদি যা দেখেছো বলছি না দেখার ভুল অথবা সত্যি নয়
তার গাড়ীতে আমাকে পেলে গ্রীষ্ম কিংবা শীতে
উঠিয়ে দিতোই মাথার উপরের গাড়ির কালো হুড
তাঁর পছন্দ মুক্ত হাওয়ায় উডুক আমার কুঁকড়া চুল।
হাটতে গেলে রাস্তা কিংবা শপিংমলে
যতই থাকুক শপিং ব্যাগের পাহাড়
হাতটি আমার ধরেই থাকবে সে।
আর বৃষ্টি ;
আমায় নিয়ে বৃষ্টিতে সে ভাসবেই
পারিপার্শ্বিকতার হোক যতই বিরাগপূর্ণ।
দিদি তাঁর প্রতি বিশ্বাস অটুট আমার ভালোবাসার মতই
ভেসে গেছি আমার আমি তার ভালোবাসায় তুড়ে
সাতপাকে বাঁধা পড়েছে হৃদয়ে হৃদয়
তাঁর ভালবাসার সিঁদুরে রাঙা বৈষ্ণবী এই মন..........


সাবস্ক্রাইব করুন! মেইল দ্বারা নিউজ আপডেট পান