কবি আরিফুল ইসলাম এর তৃতীয় কাব্যগ্রন্থ প্রি-অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন
বাংলাবাজার টু বুড়িগঙ্গা - ভোলা দেবনাথ
$post->title

 

চাঁদ ঘেঁষা থোপ থোপ মেঘমালা উঁকি দিচ্ছে ক্ষণে ক্ষণেকোথাও লুকানো তারা, আবার কোথাও মিটিমিটি হাসছে তারা

হেঁটে চলেছে পাহাড়ি মুকুল, কবি এ আর খানপেছনে পাঠক অজয় পিছিয়ে রয়েছেপুনরায় পিছিয়েসঙ্গে প্রান্তিক অরণ্য

ল্যাম্পপোস্টসোডিয়াম লাইট

রাত গভীরে প্রবেশ করছে

যানবাহন কমে আসছেসারাদিনের ব্যস্ত রাস্তা বিশ্রামে যাচ্ছেপদভার, হৈ-চৈ আর হর্ণের কান ধাঁধানো আপাতত নিস্তারে

এগিয়ে যাচ্ছে চার মহারথী

সামনে বুড়িগঙ্গা

গঙ্গা যুগযুগ ধরেই বুড়ি হয়ে আছে পুরনো ঢাকায়

চার মহারথী জায়গা করে নিয়েছে বিউটি বোডিং-এসাহিত্যের স্মৃতিবিজড়িত বিউটি বোডিংবাংলা সাহিত্যের অনেক রচনাই কালের সাক্ষী হয়ে আছে এ বোডিং-এর কয়েক কক্ষ

চার মহারথীর এবার ঢাকা সফর, ঢাকা শহরের মতোই ব্যস্ততায়টাইট প্রোগ্রামে দিন কেটে যায়, ঢাকা দেখা হয় না

সাহিত্যাড্ডাগুলো ঢাকা শহরের ট্রাফিক জ্যামের মতোকবি হওয়ার রেস খেলায় ঢাকা উপযুক্ত স্থানআড্ডাগুলো রেস খেলার রেফারী!

গ্রামের মানুষ নিয়েই ঢাকা শহরঢাকার মানুষ শুধু পোষাক বদলায়পরিধান করে শহুরে ঐতিহ্য

সন্ধ্যা এলে ঘনিয়ে আসে রাত

মহারথীরা শোবার ঘরে ফিরেবোডিং-এ, বাংলাবাজার

বাংলাবাজার মানে ছাপাখানা

পেপার আর কালারের গন্ধে মৌ মৌ রাতদিন ভর

মন্দ লাগে না মহারথীদেরকারণ, এরাও লেখালেখি করেএমন গন্ধের সঙ্গে জীবনের সম্পর্ক রয়েছে

সকালের নাস্তা, লাঞ্চ চলে ঢাকার অচেনা হোটলে

কিন্তু বাংলাবাজারে এসে ডিনার চলে এক সাদাসিধে রেঁস্তুরায়

তুণ্ডল রুটি আর সবজির পরে এককাপ দুধ চাবেশ

তারপর সাররাত সুখময় সময়...

রেঁস্তুরায় বসে হাফ ছেড়ে বাঁচে মহারথীরাসবজির সঙ্গে মুরগি বা খাসির মাংসঅন্য কোনো মাংস এখানে ওঠে না

তারপরেও বিশ্বাসে টানা পড়ে, ঢাকা শহর বলে কথা!

উঁচু-নিচু দালান-কোঠায় বিশ্বাস-অবিশ্বাস হাবুডুবু খায় পাহাড়ের উপত্যকায় ওঠানামার মতো

কষ্ট হয় রেঁস্তুরার ছেলেটির জন্যসযতনে খাবার পরিবেশন করে ছেলেটিপরিচ্ছন্নতার ছাপ আছেখাবার শেষে মুখের দিকে টুলটুল করে চেয়ে থাকে কটা টাকা বকশিশের জন্যপ্রান্তিক অরণ্য একবার জিজ্ঞাসা করলÑ দৈনিক কয়টাকা পাও? ছেলেটি শান্ত স্বভাবে উত্তর দিলÑ বলতে শরম লাগে

প্রতি রাতের মতো ডিনার সারে চার মহারথীসেই ছেলেটি! আপন, আপন রইলো নাযদিও বকশিশ দিয়েই বেরিয়ে এলো মহারথীরা

সকাল হতে-না হতেই ঢাকা ছাড়বে পাহাড়ি মুকুল, কবি এ আর খান, পাঠক অজয় ও প্রান্তিক অরণ্য

বাংলাবাজার প্রতি রাতের মতোই একই রূপে বহমানপথ ধরে সামনে এগুতে এগুতে বুড়িগঙ্গা জলেপাড়ের সোডিয়াম লাইটগুলো জলের গভীরে মিটমিট করে তারার মতোই জ্বলছে


সাবস্ক্রাইব করুন! মেইল দ্বারা নিউজ আপডেট পান