বইমেলায় সাইফুল ইসলাম জুয়েলের দুই উপন্যাস
$post->title
নিজের লেখা দুই উপন্যাসের প্রচ্ছদের সঙ্গে তরুণ লেখক সাইফুল ইসলাম জুয়েল।

অমর একুশে বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে তরুণ লেখক সাইফুল ইসলাম জুয়েলের রোমান্টিক উপন্যাস ‘পাতাঝরা মন’ ও কিশোর গোয়েন্দা উপন্যাস ‘গীতাঞ্জলি চুরির রহস্য’। গত পাঁচ বছরের ধারায় এবারও তিনি বড়দের ও ছোটদের এই দুই ক্যাটাগরিতে একটি করে বই বের করেছেন।

পাতাঝরা মন এক নিরেট ভালোবাসার কাহিনী। সময়ের প্রতিশ্রুতিশীল লেখক সাইফুল ইসলাম জুয়েলের আশ্চর্য রহস্যপ্রিয়তায় রোমান্সের সাথে রোমাঞ্চের মিশেলে উপন্যাসটি হয়ে উঠেছে আরও বেশি জীবন্ত। অবশ্য কোনো সিরিয়াসধর্মী পাঠকের জন্য নয়। যারা ভালবাসতে কিংবা ভালোবাসাতে পছন্দ করেন, স্রেফ তাদেরই জন্য একরাশ ভালোবাসাসহ। মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া এক তরুণ ও তার দুই প্রণয়প্রার্থীর বিভিন্ন ঘটনা প্রবাহ নিয়ে এর কাহিনী সাজানো হয়েছে। তবে, শুধু প্রেম কাহিনীই নয়, দিনশেষে এতে পাঠক সামাজিক বাস্তবতামূলক অনেককিছুই খুঁজে পাবেন।

রোমান্টিকধর্মী এই উপন্যাসটি প্রকাশ করেছে অনিন্দ্য প্রকাশ। প্রচ্ছদ এঁকেছেন সোহানুর রহমান অনন্ত। ১১২ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২০০ টাকা। বইটির পাওয়া যাবে বইমেলার ০৩ নম্বর প্যাভিলিয়নে।

লেখকের অন্য উপন্যাসটি মূলত শিশু-কিশোরদের উপযোগী। পাণ্ডুলিপির জন্য এটি গতবছর ‘বাবুই শিশুসাহিত্য পাণ্ডুলিপি পুরস্কার-২০১৮’ লাভ করে। পাণ্ডুলিপিটিই এবার বই আকারে প্রকাশ পেয়েছে।

বিদ্যালয়ের লকার রুম থেকে চুরি যায় দুর্লভ এক পাণ্ডুলিপি। যাতে স্বয়ং কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের হাতের স্পর্শ রয়েছে! কে বা কারা করেছে এ কাজ? বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক এই রহস্য উদ্ধারের দায়িত্ব অর্পণ করেন তারই বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর হাতে। সবার নিকট যে ‘খুদে গোয়েন্দা’ নামেই পরিচিত। পাণ্ডুলিপি উদ্ধার অভিযানে নেমে সে আবিষ্কার করে এর প্রতি পরতে পরতে ছড়িয়ে আছে রহস্য। পর্দার আড়ালে লুকিয়ে আছে ছদ্মবেশী খুনি থেকে কুখ্যাত মাফিয়া ডন! শেষ পর্যন্ত অমূল্য সেই পাণ্ডুলিপিটি কোথায় গেল?

বইটির সম্পর্কে লেখক বলেন, ‘রহস্য গল্পের প্রতি আমার মোহ সেই শৈশব থেকেই। কিশোর অ্যাডভেঞ্চার গল্প আমাকে দারুণভাবে টানে। তাই এ সময়ের শিশু-কিশোরদের জন্য ভালো কিছু লেখার প্রেরণা সবসময়ই মনের ভেতরে থাকে। আশাকরি খুদে পাঠকেরা এটিকে নিজে থেকেই খুঁজে নেবে!’ ‘গীতাঞ্জলি চুরির রহস্য’ উপন্যাসটির প্রচ্ছদ এঁকেছেন আলমগীর জুয়েল। ৫৬ পৃষ্ঠার বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ১২০ টাকা। বইটি মেলায় পাওয়া যাবে বাবুই-এর ৬৪৫ নম্বর স্টলে।

এ নিয়ে সাইফুল ইসলাম জুয়েলের মোট বইয়ের সংখ্যা পৌঁছুল এগারোতে। অন্য বইগুলো হলো- বৃত্তের ভেতর বাহির, ভালোবাসি বলেই, তপুর গোয়েন্দাগিরি, প্রেম বালিকা, কোথায় খুঁজি তারে, তপুর গোয়েন্দাগিরি-২ : হিরামন পাহাড়ের রহস্য, এলিয়েন ভূত, দূর দ্বীপবাসিনী এবং চাঁদনী।

উপন্যাস দুটি ব্যতীতও এ বছরে সাইফুল ইসলাম জুয়েল সম্পাদিত দুটি সংকলন বের হয়েছে। সমকালীন প্রতিশ্রুতিশীল লেখকদের ছোটগল্পের সংকলন ‘শেষ হইয়াও হইল না শেষ’ ও সায়েন্স ফিকশন গল্প সংকলন ‘কল্পবিজ্ঞানে গল্প’। সংকলন দুটি প্রকাশ করেছে অনিন্দ্য প্রকাশ।

সাইফুল ইসলাম জুয়েল এ সময়ের সম্ভাবনাময় তরুণ লেখক। গল্প, উপন্যাস ছাড়াও রম্যজগতে তার বেশ দখল রয়েছে। দৈনিক ইত্তেফাকের ফান সাপ্লিমেন্ট ‘ঠাট্টা’র বিভাগীয় সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।


সাবস্ক্রাইব করুন! মেইল দ্বারা নিউজ আপডেট পান