কবি নজরুলের নাতি সুবর্ণ মানসিক হাসপাতালে !
$post->title

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। বাংলা সাহিত্যে তিনি রেখে গেছেন অপরিসীম অবদান।

বিদ্রোহী কবি নজরুলের মৃত্যুর পর বাংলা সাহিত্যে তার সমকক্ষ আর কোনো কবির আবির্ভাব হয়নি।

প্রয়াত প্রিয় কবির দৌহিত্র সুবর্ণ কাজী। নজরুল পরিবারের বংশধর বলে কথা। নিয়মিত সাহিত্য, অভিনয় ও সংগীত চর্চা করতেন তিনি।

নজরুলের নানা চরিত্রে অভিনয়ও করেছিলেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, বর্তমানে মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়ে পশ্চিমবঙ্গের একটি মানসিক হাসপাতালে ভর্তি আছেন সুবর্ণ। বিষয়টি সবাইকে নিশ্চিত করেছেন সুবর্ণের বড় বোন ও নজরুলের নাতনি সোনালী কাজী।

১৫ সেপ্টেম্বর সোনালী তার ভাই সুবর্ণের অসুস্থতা ও কারণ উল্লেখ করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেই পোস্টে তিনি লিখেন,‘সুবর্ণ কাজীকে আপনাদের মনে আছে। আমার পরের ভাই তাই ওর যত দুঃখ আমার কাছেই বলতে চেষ্টা করত। আমাদের পরিবারে সেও অনেক প্রতিভা নিয়ে জন্মেছিল। ছোট থেকেই ও বড় হবে এই স্বপ্ন দেখত। এপার বাংলা ওপার বাংলা মিলে ছিল ওর আনা-গোনা। ছোট থেকেই ওর সুন্দর এক মাথা ঝাঁকরা চুল স্বল্প ভাষি এই ছেলেটি সবার মন জয় করে ফেলত। কাজী নজরুল ইসলামের নানান চরিত্রে অভিনয় করতে লাগল।

এম এ পাশ করল ইংরেজিতে। বিএড করল। ও নজরুলের ‘নার্গিস’, ‘শিল্পী’,‘ফজিলতুননেসা’, ‘বাংলা মায়ের দামাল ছেলে’-এগুলোতে অভিনয় করেছিল। ওর বড় হওয়া আর হলো না। ও অনেক চেষ্টা করেছিল। নানা বাধা ওর মানসিক আঘাতের কারণ।’

ওই পোস্টে সোনালী আরও লিখেন, ‘নানাভাবে মানসিক আঘাত পেতে পেতে ওর স্বপ্নগুলো সব ভেঙে চুরমার হয়ে যেতে লাগল। ও আমাদের মধ্যে ছিল খুব আদরের। আজ ওকে বেসরকারি নার্সিং হোমে ভর্তি করে এলাম বর্ধমানে। কী হবে জানি না। দোয়া করবেন। ও চেয়েছিল আপনাদের মাঝেই ওর কাজ ওর কবিতা ওর গান বেঁচে থাকবে, হলো না। ওর অনেক অলিখিত কথা এক দিন হয়ত জানবেন আপনারা। আমি আজ আর পারলাম না একটু না বলে আপনাদের। ওর পাশে থাকুন।’


সাবস্ক্রাইব করুন! মেইল দ্বারা নিউজ আপডেট পান