ফরিদ আহমদ দুলাল এর কবিতা
$post->title

রবীন্দ্রনাথের মুখোমুখি

 

কাকে বলি আকাঙ্ক্ষা-কে পূর্ণ করে তৃষিত উৎসব?

প্রার্থনার থালা হাতে গেলে গোলাম বানায়-বলাৎকার করে

পোস্টমর্টেমে ধর্ষণ লিখে মানববন্ধন করে ঢেকে দেয় গোরে;

প্রার্থনার মতো চাইলে অধিকার থাকে না আমার

ভোটাধিকার ছিনিয়ে নেয় পোষা দুর্বৃত্ত-বাহিনি

কখনো বা ট্রাক তোলে মিছিলের গায়ে

তপ্তজলে পোড়ে কাঁদায় কাঁদুনেগ্যাসে, বুলেট-ক্রসফায়ার!

রবিবাবু তোমার অমর গান অকার্যকর কি তবে?

কেনো এবারও "এসো হে বৈশাখ" সমস্বরে গাবো

প্রার্থনায় কালবৈশাখী ছাড়া আর কিছু দিশা পাবো?

 

এতোসব অভিমান শুনে মৃদু হেসে বলেন রবীন্দ্রনাথ-

যদি নিজেকে মানুষ ভাবো, জয় করে নাও নিজের সীমাবদ্ধতা

তাপস-নিঃশ্বাস হও মুমূর্ষুরে ওড়ায়ে নিঃশ্বাসে

অধিকার কেড়ে নাও জীর্ণ-পুরাতন সরাও যৌবন নিজে!

যদি আমি জীর্ণ-জ্বরা হই যদি বর্জ্য হই মুছে ফেলো আমাকেও

শুধু বাঙালির শৌর্য-বীর্য শিষ্ট-সুরুচিকে হারাতে দিও না কেউ!

 



সাবস্ক্রাইব করুন! মেইল দ্বারা নিউজ আপডেট পান